ইসলাম

আল্লাহর অস্তিত্ব থাকলে পৃথিবীতে এত দুঃখ-কষ্ট কেন?

এক ধর্মের সাথে আরেক ধর্মের কনসেপ্টে বড়সড় পার্থক্য থাকে। আমরা এখানে শুধুমাত্র ইসলামের দৃষ্টিকোণ থেকে বোঝার চেষ্টা করবো আল্লাহর অস্তিত্ব থাকার পরও পৃথিবীতে এত দুঃখ-কষ্ট কেন।

‘ইজাযুল কুরআন

আমি আজ যেটা শেয়ার করবো সেটা শুধুই তথ্য নয়, তথ্যের চাইতেও বেশি কিছু, যাকে আরবিতে ‘ইজায বলা হয়। ‘ইজায হচ্ছে এমন কিছু যা আপনাকে হতভম্ব করে দেয়।

সত্যিকারের ভালোবাসা

ভালোবাসা মানুষভেদে বিভিন্ন রকম হয়। একইভাবে আল্লাহর রাসূলকে ﷺ ভালোবাসার আলাদা ধরণ আছে। তাঁকে ভালোবাসতে হবে অনুসরণের মাধ্যমে। হুবুহু অনুসরণ।

জুমু’আর খুতবা ও আমাদের অবহেলা

শতশত খুতবা আমরা ইতিমধ্যে শুনে ফেলেছি। কিন্তু এতসবের কতটুকু আমাদের উপর কার্যকর হয়েছে? এককথায় খুবই কম। মসজিদ থেকে বের হয়েই আমরা সবকিছু ভুলে যাই।

শাশ্বত বন্দিত্ব

খাঁচাগুলো স্বীকার করে না, তারা যে খাঁচা। এমনকি খাঁচার অধিবাসীরাও জানতে পারে না যে, তারা খাঁচায় আছে। একদল লোক নিজেদের পছন্দের খাঁচার গায়ে ‘মুক্তচিন্তা’ আর ‘মুক্তমন’ এর সাইনবোর্ড টাঙায়।

বিদ’আত: সুন্নাহর আদি ও অকৃত্রিম শত্রু (পর্ব – ২)

এই পর্বে থাকছে- বিদ'আত কেন বর্জনীয়, আমাদের সমাজে বহুল প্রচলিত কিছু বিদ'আতের কথা এবং বিদ'আত থেকে বেঁচে থাকতে আমরা কী করতে পারি- সে ব্যাপারে আলোচনা।

রূপকথাও হেরেছিলো

কিছু গল্প বাস্তব। তাদের জন্ম আমাদের এই চিরচেনা পৃথিবীতে। কিন্তু তারা হার মানায় রূপকথাকে। আজকের গল্পটা তেমনই এক গল্প। সে গল্পের নায়ক মুসআব বিন উমাইর (রাঃ)।

স্টেরিওটিপিক এলিয়েনের গল্প

আমাদের এলিয়েন কোনো ভিনগ্রহের বাসিন্দা নয়, এই গ্রহের আলো বাতাসেই বড় হয়েছে সে। তবুও গড্ডালিকা প্রবাহে ভেসে না যাওয়াই তাকে বানিয়ে তুলেছে নিজ গ্রহে এলিয়েন।

শর’ঈ পর্দা বনাম হিজাবি ট্রেন্ড

আল্লাহর দেয়া নিয়মগুলো মেনে চলতে কেন কষ্ট হয় আমাদের? কেন আমরা যেকোনোভাবেই একটা মধ্যমপন্থা বেছে নেই যেটা উপরে উপরে মনে হয় সঠিক, কিন্তু গভীরে গেলে বোঝা যায় তার কিছুই ঠিক নেই?

বিদ’আত: সুন্নাহর আদি ও অকৃত্রিম শত্রু (পর্ব – ১)

আল্লাহ্‌র রাসূল ﷺযা বর্জন করেছেন তা করার মাধ্যমে কেউ যদি “বেশি সওয়াব” এর আশা করে তা হবে এক বিধ্বংসী চিন্তা। আর এই বিধ্বংসী চিন্তা থেকেই বিদ’আত শুরু হয়।