হারমাইনের দেশে: পর্ব ০৮ (রাসূল ﷺ এর কবর যিয়ারত)

সত্যি কথা বলতে কি, আমি খুব সাবধানতার মনোভাব নিয়ে মাসজিদে এসেছি, পাছে কোনো বিদআতি বা শির্কি কিছু করে ফেলি। আমি কার কবর যিয়ারত করতে যাচ্ছিলাম, তাঁর বিশেষত্ব আমার মাথায় তখনো ঠিকমতো কাজ করছিলো না। কিন্তু ধীরে ধীরে যখন উনার কবরের দিকে এগোতে লাগলাম, নিজেও জানি না কখন হঠাৎ করে আমার সমগ্র হৃদয় প্রচণ্ড আবেগে আলোড়িত হয়ে উঠলো।

হারামাইনের দেশে: পর্ব ০৭ (মাসজিদে নববীর ‘দারস’)

মদিনা হলো ইসলাম সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনের শ্রেষ্ঠ স্থান। মহানবী ﷺ এর শহরে আসাটা যেন আমাদের জন্য ছিলো এক শিক্ষা সফর। ইসলামের অনন্য সৌন্দর্যের সাথে আমরা এখানে নতুন করে পরিচিত হয়েছি।

হারমাইনের দেশে: পর্ব ০৬ (মাসজিদে নববী)

এ মাসজিদের আকার আকৃতি, রাজকীয়তা, পরিচ্ছন্নতা, কারুকার্য নিয়ে বহু বাক্য রচনা করা যাবে। কিন্তু মাসজিদে নববীর মূল মাহাত্ম্যর পাশে এসব বিশেষণ যেন ম্রিয়মাণ হয়ে পড়ে।

হারমাইনের দেশে: পর্ব ০৫ (মদীনা গমন)

মক্কায় দু’দিন থেকে একদিন খুব ভোরে আমরা বাসে করে মদীনা রওনা হলাম। রাতের অন্ধকারেও বেশ বোঝা গেলো যে, মক্কার মতো রুক্ষ নয় মদীনা। বরং কোথায় যেন কিছুটা লালিত্য রয়েছে।

হারমাইনের দেশে: পর্ব ০৪

হাজ্জ হলো এমন এক সফর, যেখানে আমরা প্রতি মুহূর্তে আল্লাহ্‌র নিকট আত্মসমর্পণ করার ও বিনয়ী হবার শিক্ষা পাই। নম্র এখানে হতেই হবে, তা না হলে হাজ্জ কীসের?

হারামাইনের দেশে: পর্ব ০৩

হাজ্জের ইতিহাসের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হলো ইব্রাহীম (আঃ) এর জীবনী। হাজ্জের যাবতীয় কর্মকাণ্ড তাঁর সুন্নাত ঘিরে আবর্তিত। তাই তাঁর সম্পর্কে কিছুটা না জানলে হাজ্জের মাহাত্ম্য পরিপূর্ণভাবে বোঝা সম্ভব নয়।

হারামাইনের দেশে: পর্ব ০২

কালো সিল্কের উপর সোনালী সুতার কাজ করা কাবা ঘর আমার একদম চোখের সামনে!! সত্যি সত্যি আমরা এখানে!! চর্মচক্ষুতে কাবা প্রথম দেখে কেউ কান্নায় ভেঙে পড়ে, কারো অনুভূতি অবশ হয়ে যায়।

হারামাইনের দেশে: পর্ব ০১

আমরা বহুদিন ধরে উন্মুখ হয়ে ছিলাম আল্লাহ্‌র ঘর দেখার জন্য, কিন্তু যার ঘর তাঁর ডাক না আসলে, কোনোভাবেই যাওয়া যে সম্ভব নয়, তা আমরা সে সময় প্রতি পদে হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি।

ইসলামে নারীর অর্থনৈতিক অধিকার

আমাদেরকে আল্লাহ্‌ এত সম্মান ও অধিকার দেবার পরেও, সমাজে সঠিক ইসলাম চর্চা না হবার কারণে নারীরা প্রতি পদে পদে অনবরত ধাক্কা খাচ্ছে, বঞ্চিত হচ্ছে ... আমরা আমাদের ধর্ম ও ধর্মে প্রদত্ত অধিকারের ব্যাপারে শিক্ষিত হই না বলেই আমাদের ওপর এত নির্যাতন করা সম্ভব হচ্ছে।

নারীর উপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতনের কারণ ও প্রতিকারের পথ

বিজ্ঞজনেরা সর্বদা বলতে চান, 'প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার অভাব' ও 'দারিদ্র্য' হলো নারী নির্যাতনের পেছনের মুখ্য নিয়ামক। আসলেই কি এই দুটো কারণেই নারীরা এত লাঞ্ছিত হচ্ছে?